সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এমপি সড়কের সংস্কার কাজে দুর্নীতি হলে ছাড় দেয়া হবে না

৫ নভেম্বর ২০১৯ মৌলভীবাজার, সিলেট বার পঠিত হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার :: মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ সংরক্ষিত আসনের মহিলা সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এমপি বলেছেন,অবকাঠামো উন্নয়ন হচ্ছে একটা দেশের মূল চাবিকাঠি,অবকাঠামো উন্নয়ন যদি না হয় তাহলে তো আমাদের এই মৌলভীবাজারের উন্নয়ন হবেনা। আমি এজেলার উন্নয়নের জন্য যা প্রয়োজন তাই করে যাবো।

মঙ্গলবার (৫নভেম্বর) বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে সাংবাদিকদের সাথে নিয়ে মৌলভীবাজার-শমসেরনগর সড়কের সংস্কার কাজ পরিদর্শন করতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যথাযত ভাবে কাজ করতে নির্দেশ দিয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী সব বিষয়ে খবর রাখেন। একাজে কেউ বাধা দিলে বা কোন প্রকার অবহেলা করলে কোন ছাড় দেয়া হবেনা। সোস্যাল মিডিয়ায় মানুষ এই কাজের জন্য যেভাবে আমাকে উৎসাহিত ও দোয়া দিয়েছে এটা আমাকে স্বার্থক করেছে।

সংস্কার কাজ পরিদর্শনকালে এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন, প্রকল্প বাস্তবায়নে নিয়োজিত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান র‌্যাব আরসির পক্ষে মো: মুহিবুর রহমান(কুকিল) সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহরিয়ার আলম, মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল হামিদ মাহবুব, দৈনিক বাংলার দিন সম্পাদক বকসী ইকবাল আহমদ ও মৌলভীবাজার মডেল থানার ওসি (তদন্ত) পরিমল চন্দ্র দেবসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিকরা।
এসময় সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ শাহরিয়ার আলম সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে জানান, ৪২ কোটি ৮০লক্ষ ৮৫ টাকা ব্যায়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান র‌্যাব আরসির মাধ্যমে আগামী ১৮ মাসের মধ্যে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে। তিনি বলেন চলতি বছরের গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকে মৌলভীবাজার-সমশেরনগর-চাতলাপুর চেকপোস্ট সড়কের সংস্কার কাজ শুরু হওয়ার কথা থাকলেও কাজ শুরু হয়েছে অক্টোবরের ১৫ তারিখ থেকে।

জানা যায়, গত বছরের শেষ দিকে একনেক এর বৈঠকে চুড়ান্ত অনুমোদন পেলেও শেষ পর্যন্ত সড়কের সংস্কার কাজের টেন্ডার হয়নি। অবশেষে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এর প্রচেষ্টায় দীর্ঘদিনের সীমাহীন ভুগান্তি শেষে এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটির উন্নয়ন কাজ শুরু হওয়ার সংবাদে জনমনে স্বস্থি ফীরে এসেছে।
সড়ক পরিহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বরাবর মৌলভীবাজারের সংরক্ষিত আসনের সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন এমপি কর্তৃক নোটিশ প্রদানের পর জেলা মহাসড়ক সমূহ যথাযত মান প্রশস্ত্রতায় উন্নীতকরণ (সিলেট জোন) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ৬৮ কোটি ৯১ লক্ষ টাকা প্রাক্কলিত ব্যায়ে মৌলভীবাজার-শমশেরনগর-চাতলা চেকপোষ্ট (জেড-২০০২) মহাসড়কটি উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রথম দফায় ৪২ কোটি ৮০লক্ষ টাকা ব্যায়ে দরপত্র সম্পন্ন শেষ হয়ে বর্তমানে সড়কটির সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। পরবর্তীতে দ্বিতীয় দফা দরপত্রের মাধ্যমে শেষ হবে সড়কটির অবশিষ্ট অংশের সংস্কার কাজ।
২০১৮ সালের ভয়াবহ বন্যায় সড়কটির বিভিন্ন অংশে খানাখন্দ তৈরি , কার্পেটিং উঠে গিয়ে বড়বড় গর্তসহ মারাতক ক্ষতিগ্রস্থ হয়। পরবর্তীতে ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে পিএমপি মাইনর (জরুরী মেরামত) এর মাধ্যমে মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজ করে সড়কটি কোনরকম সচল রাখা হলেও জনদূর্ভোগ চুরান্ত আকার ধারণ করে।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ, কুলাউড়া, মৌলভীবাজার সদর ও রাজনগর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামের হাজার হাজার মানুষের চলাচলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার শিক্ষার্থী ও সাধারণ মানুষ মৌলভীবাজার জেলা সদরের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে চলছে। দীর্ঘদিন যাবত রাস্তাটি সংস্কার না করায় যান চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে। মৌলভীবাজার থেকে কমলগঞ্জ উপজেলার শমশেরনগর পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার সড়কের অধিকাংশই খানাখন্দে ভরা।

চাতলাপুর চেকপোস্ট দিয়েই কার্ভাডভ্যান, পর্যটকবাহী বাস-মিনিবাস ও মালবাহী ট্রাকগুলো ভারতে প্রবেশের একমাত্র সড়কপথ। চাতলাপুর চেকপোস্ট ও শমশেরনগর থেকে মৌলভীবাজার সদরে যাতায়াত ও মালামাল পরিবহনে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি বর্তমানে যান চলাচলের ক্ষেত্রে মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ । গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি বেহাল দশায় পরিণত হওয়ার কারনে কয়েক লক্ষাধিক মানুষ পড়েছে চরম সীমাহীন দুর্ভোগে।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।