যথাযোগ্য মর্যাদায় পবিত্র আশুরা পালিত

১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ মৌলভীবাজার, সিলেট বার পঠিত হয়েছে

কুলাউড়া প্রতিনিধি॥  ১০ মহররম পবিত্র আশুরা। বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা নবাব বাড়িতে দিবসটি পালিত হয়েছে।  এখানে ডাক ঢোল বাজিয়ে ছুরি মাতমের মাধ্যমে কারবালা প্রান্তর বা ময়দানে গিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদির মাধ্যমে দশ দিনের আশুরার সমাপ্তি হয়। কুলাউড়া উপজেলার পৃথিমপাশা নবাব বাড়ি থেকে ১০ মহরম বিকেল তিনটায় শিয়া সম্প্রদায়ের উদ্যোগে বৃহৎ তাজিয়া মিছিল বের হয়ে রবিরবাজার সংলগ্ন ময়দানে এসে ছুরি মাতমের মাধ্যমে শেষ হয়। চারশত বৎসরের পূরনো ঐতিহ্যকে ধরে রেখে পৃথিমপাশার নবাব পরিবার সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাডভোকেট নওয়াব আলী আব্বাছ খান এর নেতৃত্বে এলাকার শিয়া সম্প্রদায়ের শতাধিক লোক সহ ছুন্নী সম্প্রদায়ের লোকদেরও আশুরায় ছুরি মাতম করতে দেখা যায়। এসময় লাখো দর্শকের সমাগম ঘটে।

মহররমের ৭ তারিখে বিভিন্ন গ্রাম থেকে তাজিয়া মিছিল এসে নওয়াব বাড়িতে জড়ো হয় তা চলে ৯ তারিখ রাত পর্যন্ত। ৮ ও ৯ মহররম গভীর রাতে মিছিল বের হয়ে রবির বাজার প্রদক্ষিণ করে তরপী সাহেব বাড়ি হয়ে ইমাম বাড়ায় এসে শেষ হয়। ১০ তারিখ পবিত্র আশুরার দিনে বিকেল ৩ টায় শুরু হয় মূল তাজিয়া মিছিল । মিছিলে থাকে হাতি,তাজিয়া এবং সোনা রুপার তৈরী বিভিন্ন তৈজসপত্র যাহা আলম নামে পরিচিত। সবচেয়ে বড় তাজিয়ার পিছনে থাকে জিঞ্জির মারার দল,যারা নিজের গায়ে নিজে ১০/১২ টি ছোট ছোট চাকু একসাথে করে ( মুঠি বলে) দিয়ে জিঞ্জির মারে। রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় জিঞ্জির মেরে ময়দানে এসে অনেকক্ষণ ধরে সেখানে পিঠে জিঞ্জির এবং বুকের মধ্যে ব্লেড দিয়ে আঘাত করে নিজেকে রক্তাক্ত করে ইমাম হোসেন(রা:) এর শোক পালন করে। শিয়া সম্প্রদায় ঘটা করে আশুরা পালন করলেও এখানে হিন্দু,বৌদ্ব ও খৃষ্টানসহ সকল ধর্মের রয়েছে মিলন মেলা। নিরাপত্তার জন্য এবছর হাতি মিছিল হয়নি।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।