দি ফ্লাওয়ার্স কে.জি এন্ড হাই স্কুলের অবহেলায় অর্ধশত শিক্ষার্থী আহত

৩ আগস্ট ২০১৯ মৌলভীবাজার, শীর্ষ সংবাদ, সংবাদ শিরোনাম, সারাদেশ, সিলেট, সুনামগঞ্জ, স্বাস্থ্যসেবা, হবিগঞ্জ বার পঠিত হয়েছে

মশাহিদ আহমদ :: মৌলভীবাজার সদর উপজেলার দি ফ্লাওয়ার্স কে.জি এন্ড হাই স্কুলে বিদ্যালয় চলাকালীন অবস্থায় মশা নিধনের ঔষধ স্প্রে করার কারনে প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়েছে আজ ৩ আগষ্ট দুপুর ২টার দিকে। আহতদের মধ্যে ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী এমি, সানন্দ দত্ত, নওশিন আক্তার, ইসমা, রিমা, মৌসুমি দত্ত, রিয়া দত্ত, তনিমা জান্নাত, শাহরিয়ার সাদি, প্রজ্ঞা চৌধুরী, সুমাইয়া, সৈয়দা ফাহিমা ও ৭ম শ্রেণীর সৈয়দা লাবিবা আহমদ প্রমুখ মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ও অন্যান্য আহতরা প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা গ্রহণ করেছেন । শিক্ষার্থী ও অভিভাবক স‚ত্রে জানা যায়- শনিবার দুপুরে দি ফ্লাওয়ার্স কে.জি এন্ড হাই স্কুলে ক্লাস চলছিল। ওই সময় স্কুলে পৌরসভার পক্ষ থেকে মাশার ঔষধ স্প্রে করা হয়। এর কিছুক্ষণ পর একাধিক ছাত্র-ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাদেরকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নেয়া হয়।

অসুস্থ এমির মামা মান্নান আহমদ বিদ্যালয়ের কর্তপক্ষের চরম অবহেলাকে দায়ী করে বলেন, আমরা চাই মশক নিধন হোক, কিন্তু আমাদের সন্তানদের ক্ষতি করে নয়। আমরা স্কুলে ছাত্রীদের পাঠিয়েছি তাদের ভাল শিক্ষার জন্য। স্কুলে গিয়ে তারা অসুস্থ হয়ে পড়লে এর দায়ভার কে নেবে? ঔষদ ছিটানোর আগে সংশিষ্টদের এদিকে নজর দেওয়া উচিত ছিল। নওশিন আক্তার এর অভিবাবক মুর্শেদ আহমদ বলেন- পৌর কর্তৃপক্ষ চাইলে স্কুল কর্তৃপক্ষের সাথে সমন্বয় করে ঔষধ স্প্রে করতে পারত। বাচ্ছাদের মারান্তক কিছু হলে এর দায় ভার কে নিবে ?।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতালের অবসর প্রাপ্ত সহকারী অধ্যাপক ও শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ জিলুল হক বলেন- শিক্ষার্থীদের দ্রুত সময়ের মধ্যে হাসপাতালে নিয়ে আসায় মারান্তক দুর্ঘঠনা হতে পারতো। স্প্রে কারণে কাশি, চোখে ও গায়ে জ্বালা-পুড়া, শ্বাসকষ্টসহ স্থায়ীভাবে নানা রোগ হতে পারে। মৌলভীবাজার নবাগত জেলা প্রশাসক নাজিয়া শিরিন বলেন- বিয়টি দুঃখ জনক। বিদ্যালয় কর্তপক্ষের অবহেলা থাকলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। আমি শিক্ষার্থীদের হাসপাতালে দেখতে যাব।

এ বিষয়ে মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. ফজলুর রহমান বলেন, এ ঘটনার পর আমি হাসপাতালে অসুস্থদের দেখতে যাই। এখন থেকে স্কুল চলাকালীন সময়ে কোন বিদ্যালয়ে স্প্রে করা হবে না।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।