জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে খোকার প্রথম জানাজা

৪ নভেম্বর ২০১৯ আন্তর্জাতিক, জাতীয়, ঢাকা, রাজনীতি, শীর্ষ সংবাদ, সংবাদ শিরোনাম, সারাদেশ বার পঠিত হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক: :অবিভক্ত ঢাকা সিটির সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাজা সোমবার বাদ এশা নিউইয়র্কের (সময় ৭টা) জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে অনুষ্ঠিত হবে। নামাজে জানাজার শেষে যত দ্রুত সম্ভব তার মরদেহ ঢাকার উদ্দেশ্যে নিয়ে আসা হবে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি ও খোকার পরিবার।নিউইয়র্কের জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারে অবিভক্ত ঢাকা সিটির সাবেক মেয়র ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে বলে তার পরিবার ও যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।জানা যায়, সাদেক হোসেন খোকার ইচ্ছা অনুযায়ী জুরাইন কবরস্থানে তাকে তাঁর বাবা-মায়ের কবরের পাশে দাফন করা হবে। সোমবার বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন খোকার শ্যালক শফিউল আজম খান। পরিবারের পক্ষ থেকে তাঁর মৃতদেহ ঢাকায় আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটনের মেমোরিয়াল স্লোয়ান ক্যাটারিং ক্যান্সার সেন্টারের তার চিকিৎসা চলছিল। শেষ পর্যায়ে চিকিৎসকরা তার আশা ছেড়েও দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন পরিবার ও স্বজনেরা। মৃত্যুর সময় খোকার স্ত্রী ইসমত হোসেন, ছেলে ইশরাক হোসেন ও ইশফাক এবং মেয়ে শারিকাসহ স্বজনরা নিউ ইয়র্কের ওই হাসপাতালেই ছিলেন।সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর পরই হাসপাতালে ভিড় জমান যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির নেতাকর্মী, সাংবাদিক ও কমিউনিটির বিশিষ্টজনদের অনেকে। এ ছাড়া তার কিছু সময় আগে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি ড. সিদ্দিকুর রহমানসহ দলের কয়েকজন নেতা ঢাকার সাবেক মেয়রকে দেখতে হাসপাতালে যান। এই মুক্তিযোদ্ধার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন নিউইয়র্কের নানা শ্রেণি পেশার মানুষ।

চিকিৎসার জন্য পর্যটক ভিসায় সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন খোকা। পরে এখানে স্থায়ীভাবে বসবাসের জন্যে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা করেছিলেন তিনি। যদিও শেষ পর্যন্ত তা মঞ্জুর হয়নি। ঘনিষ্ঠজনরা বলছেন, মৃত্যুর আগে সাদেক হোসেন খোকা ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন মারা গেলে যেন দেশে নিয়ে তাকে দাফন করা হয়।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।