জানালা ও লিডিং ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাবের কমলগঞ্জে শীতবস্ত্র বিতরন

১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ মৌলভীবাজার, সিলেট বার পঠিত হয়েছে

আব্দুল বাছিত খান,মৌলভীবাজারঃ

বাংলাদেশের শীতপ্রবন এলাকাগুলোর মধ্যে কমলগঞ্জ, মৌলভীবাজার অন্যতম। শীত আসলেই যেখানে গরীব অসহায় মানুষদের হাহাকার শুরু হয় সামান্য একটু উষ্ণতার খোঁজে। আজ  টিম জানালা এবং লিডিং ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাবের যৌথ উদ্যোগে ঐসব অসহায় মানুষদের সামান্য একটু উষ্ণতার পরশ দিয়েছেন ক্লাব দুটির সদস্যরা। আজ ১৪ই ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে কমলগঞ্জ এলাকার মুন্সীবাজারের কালিপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রায় ২২৫ জন  শীতার্তদের মধ্যে ভালো মানের শীতের কম্বল বিতরণ করা হয়। জানালা’র সভাপতি জনাব ইফতি সিদ্দিকী ও লিডিং ইউনিভার্সিটি সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাবের সভাপতি হাসান আহমেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন  কালিপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সত্যেন্দ্র কুমার পাল, সমাজ সেবক হামিদুল হক চৌধুরী বাবর,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইমন তরফদার,সাকের আহমদ তরফদার, জনি চৌধুরী, মুরাদ তরফদার প্রমুখ। কালিপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তার বক্তব্যে এই দুই সংগঠনকে এরকম মহতি উদ্যোগ গ্রহনের জন্য ধন্যবাদ জানান  এবং ভবিষ্যতে আরো এরকম কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার জন্য আহ্বান জানান।জানালার সুযোগ্য সভাপতি ইফতি সিদ্দিকী উনার বক্তব্যে বলেন- ”  আমরা কোনো লোক দেখানোর জন্য কিংবা করুণা হিসেবে নয়, আমাদের দায়বদ্ধতা থেকে এখানে এসেছি। আমাদের সবারই উচিৎ স্বাধ্যমত এই মানুষগুলোর পাশে দাঁড়ানো। আমরা প্রতিবার চেষ্টা করে থাকি তাদেরকে ভালো মানের কম্বল দিতে, যাতে করে তারা দুই/তিন বছর এটাকে অবলম্বন করেই শীত নিবারন করতে পারেন। এক্ষেত্রে বিতরণের সংখ্যা কমই হোক না কেন, সেটা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ নয়। আমরা যতজন মানুষের পাশেই দাড়াই না কেনো, তারা যেন সত্যিকার অর্থেই উপকৃত হন- এটাই আমাদের উদ্দেশ্য।”তিনি সমাজের অন্যান্যদের ও এভাবে অসহায় মানুষদের পাশে এগিয়ে আসার জন্য আহ্বান জানান। উল্লেখ্য, টিম জানালা তাদের নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে প্রতি বছর শীতার্তদের মধ্যে এরকম শীতবস্ত্র বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে।

 

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।