করোনা আতংক: ছবিতেই মৌলভীবাজারে যানবাহন ও মানব শুণ্য প্রতিটি সড়কের দৃশ্য

২৬ মার্চ ২০২০ মৌলভীবাজার, লাইফ স্টাইল, সিলেট বার পঠিত হয়েছে

সাকের আহমদ/মিজানুর রহমান মিজান: করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থার অংশ হিসেবে আজ থেকে সারাদেশে গণপরিবহন বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত মৌলভীবাজারে বাস স্টেন্ডসহ বিভিন্ন সড়কে সড়কে হটাৎ দু একটি প্রাইভেটকার,মোটরসাইকেল ও রিকশা ছাড়া কোন পরিবহন দেখা যায়নি। অথচ যানবাহন ও মানুষের উপচে পড়া ভীর থাকতো যেখানে সেখানেই মানবশুণ্যতা। মৌলভীবাজার জেলা শহরের ব্যস্ত এলাকা গুলো ঘুরে অনেকটাই ফাঁকা দেখা গেছে। এর মধ্যে রয়েছে সিলেট রোড.শ্রীমঙ্গল রোড,কোর্ট রোড,কুলাউড়া রোড,সাইফুর রহমান রোড,কোট রোড,শমশের নগর রোডসহ প্রতিটি সড়কে যানবাহন এমনটি মানবশুন্য। শুধু তাই নয় শহরের অলিগলিতে নেই মানুষের উটা বসা। এসব রাস্তায় অন্যান্য দিনের তুলনায় অপেক্ষাকৃত যানবাহন কম এবং সাধারণ মানুষেরও তেমন কোনও জটলা নেই বললেই চলে। দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তৃতি মোকাবেলায় সরকার ইতোমধ্যে ২৬ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। এর প্রেক্ষিতে মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক জনসাধারণকে ২৬ মার্চ সকাল ৬ টা থেকে অতিজরুরি যেমন- খাদ্য ও ঔষধ ক্রয়, চিকিৎসা ছাড়া কোনোভাবেই বাড়ী থেকে না বের হতে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। পৌর শহরে ঘুরে দেখা যায় দোকানপাট বন্ধ রয়েছে। শুধু ঔষধের দোকান, হোটেল,কাচাঁবাজার, মুদিখানা খোলা রয়েছে। এছাড়া মৌলভীবাজার শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে দায়িত্বরত আইনশৃংখলাবাহিনীর সদস্যরা অবস্থান নিয়ে আছেন। প্রয়োজনমত তারা মোটরসাইকেল ও প্রাইভেটকার দেখলেই থামাচ্ছেন। জানতে চাচ্ছেন কেন বের হয়েছেন,কোথায় যাচ্ছেন। ফলে ফাঁকা মৌলভীবাজার শহরের রাস্তায় যেন লেগেছে ঈদের ছুটির আমেজ। সাধারণত ঈদুল ফিতর কিংবা ঈদুল আজহার ছুটিতে মৌলভীবাজারের বাইরের মানুষ বাড়িতে চলে গেলে এমন ফাঁকা হয় শহর।
এছাড়া আজ মৌলভীবাজারে সিএনজি চালক কিংবা যাত্রীদেরও তেমন একটা দেখা যায়নি। লোকজনও খুব কম দেখা গেছে সড়কে। তারা বাসা বাড়িতেই অবস্থান নিয়েছেন। কেউ কেউ লম্বা ছুটিতে আগেই গ্রামের বাড়ি চলে গেছেন। গত মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ সচিব খোন্দকার আনোয়ারুল ইসলামের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আজ থেকে শুরু হওয়া ১০দিনের ছুটি বা সরকারি ও বেসরকারি অফিস এবং আদালতের জন্য প্রযোজ্য। সংবাদপত্রসহ অন্যান্য জরুরি কার্যাবলির জন্য এই নির্দেশনা প্রযোজ্য নয়।

শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।